On
আপনার ল্যাপটপ কি হাং করে ? আপনার ল্যাপটপ কি অনেক স্লো ? আপনার ল্যাপটপ এ তেমন চার্জ থাকেনা ? মূলত আমরা যারা ল্যাপটপ ব্যাবহার করি তারা সবাই এই কম বেশি প্রবলেম গুলা ফেচ করে থাকি। যদিও এর পিছনে অনেক কারন আছে, তবে আপনি কিছু ল্যাপটপ ব্যাবহার করার কিছু নিয়ম বলা না গিয়েও কিছু কথা যদি মাথায় রেখে ল্যাপটপ ব্যাবহার করেন তাহলে মেবি আপনি এই সকল প্রবলেম থেকে মুক্তি পেতে পারেন।
ল্যাপটপ ব্যাবহার করার সঠিক নিয়ম
কিছু কমন ভুল আমরা করে থাকি
  • ল্যাপটপ চার্জ দিয়ে সব সময় ব্যাবহার করতে হবে
  • ল্যাপটপ দীর্ঘসময় পর্যন্ত ব্যাবহার করা যাবে না
  • ল্যাপটপে কুলার ব্যাবহার না করা - অবশ্য আপনি কুলার ব্যাবহার না করলেও প্রবলেম নেই , তবে সে ক্ষেত্রে একটু সাবধানতার সাথে ব্যাবহার করার পরামর্শ থাকবে।
এবার বিস্তারিত কথা বলা যাক, ল্যাপটপ যখন ই ব্যাবহার করতে হবে তখনই ল্যাপটপ চার্জে দিয়ে ব্যাবহার করতে হবে। এই ভুল ধারনাটি অনেকের ভিতরি আছে। তবে এই ধারনাটি সম্পূর্ণ ভুল, আপনাকে কেন সব সময় ল্যাপটপ চার্জে দিয়ে ব্যাবহার করতে হবে? আপনি যদি সব সময় ল্যাপটপ চার্জে দিয়ে ব্যাবহার করেন তাহলে অনেক সময় আপনার সাধের ল্যাপটপের ব্যাটারি এর প্রবলেম হতে পারে, এমন কি সব সময় ল্যাপটপ চার্জে দিয়ে কাজ করার ফলে আপনার ল্যাপটপ টি অনেক বেশি গরম হয়ে যেতে পারে। আর যখনই ল্যাপটপ অনেক বেশি গরম হয়ে যায় আপনি ভাবতে পারেন তাহলে কি আমি আমার ল্যাপটপে অনেক বেশি পেশার দিয়ে ফেলছি। না আসলে এমন টা না, এমন টাও হতে পারে আপনার ল্যাপটপে ৮০% বা এর নিচে চার্জ আছে তারপরেও আপনি আপনার ল্যাপটপ টি চার্জে দিয়ে ব্যাবহার করছেন, আর এর ফলেই আপনার ল্যাপটপ টি গরম হয়ে যেতে পারে। আর একটা বিষয় একটু পরিষ্কার ভাবে বুঝিয়ে বলতে চাই, এই যে আমি বললাম ল্যাপটপ এ চার্জ থাকা সর্তেও আপনি যদি ল্যাপটপ চার্জে দিয়ে কাজ করেন তাহলে আপনার ল্যাপটপ টি গরম হয়ে যেতে পারে। এ কথাটা যেমন সত্য, তেমন এই কথা টাও সত্য যে আপনি কি রকম কাজ করছেন আপনার ল্যাপটপে তার উপর ও নির্ভর করে আপনার ল্যাপটপ গরম হয়ে যাওয়ার বিষয় টা। আমি এই কথাটা এই জন্যই বললাম যে আপনি এটা ভাববেন না যে শুধুমাত্র ল্যাপটপ চার্জ থাকা সর্তেও যদি ল্যাপটপ ব্যাবহার করেন তাহলেই আপনার ল্যাপটপ টি গরম হয়ে যাবে, আপনার ল্যাপটপ টি অন্যান্য কারনেও গরম হতে পারে। তাই আমার পরামর্শ থাকবে আপনার ল্যাপটপে যদি চার্জ থাকে তাহলে আপনি আপনার ল্যাপটপ চার্জে না দিয়ে কাজ করুন, এবং আপনার ল্যাপটপে যখন ২০% এর চেয়ে কম চার্জ থাকবে তখন চার্জে দিয়ে কাজ করুন। কেননা দেখুন ল্যাপটপ যদি সব সময় চার্জে দিয়ে কাজ করতে হয়, আমার মতে তাহলে সেটা ল্যাপটপ হল না, কেননা ল্যাপটপ ব্যাবহার করার মুল স্বার্থই হল আপনি যে কোন যায়গায় ব্যাবহার করতে পারবেন, কিন্তু আপনাকে যদি সব সময় ল্যাপটপ চার্জে দিয়ে কাজ করতে হয়, তাহলে আপনি জখন বাইরে থাকবেন তখন কীভাবে আপনার ল্যাপটপ টি ব্যাবহার করবেন ? মানে চার্জে কীভাবে দিবেন, আর টা ছাড়া একটি বিষয় হল তাহলে আপনার ল্যাপটপে ব্যাটারি কেন দেওয়া হইছে যদি আপনাকে সবসময় ল্যাপটপ চার্জে দিয়ে কাজ করতে হয়। সর্বশেষ ল্যাপটপ চার্জে না দিয়ে ব্যাবহার করলেও কোন প্রবলেম হাবহা
ল্যাপটপ দীর্ঘসময় পর্যন্ত ব্যাবহার করা যাবে না সত্যতা কতটুকু ?
আমার মনে আছে আমি তখন নতুন একটা ল্যাপটপ কিনেছিলাম ২০১৫ সাল এর কথা বলছি , আমার একটা পন্ডিত ভাইয়া আমাকে এই পরামর্শ দেয়। আমি আমার সেই ভাইয়ের কথা মেনে চলি, এবং ঘন ঘন অন অফ করার ফলে আমার ল্যাপটপ এর বারটা বাজিয়ে ফেলি। সম্পূর্ণ যুক্তিহীন এই কথাটি যে ল্যাপটপ দীর্ঘসময় পর্যন্ত ব্যাবহার করা যাবে না, আপনি চাইলে সারাদিন আপনার ল্যাপটপ ব্যাবহার করতে পারেন কোন প্রবলেম হবে না। তবে দীর্ঘসময় ল্যাপটপ ব্যাবহার করার ফলে হয় এটা আপনার ল্যাপটপের পারফরমেন্স একটু দুর্বল হয়ে যেতে পারে। কিন্তু যদি আপনি খেয়াল করেন আপনার ল্যাপটপ ব্যাবহার করতে করতে আপনার ল্যাপটপ এর পারফরমেন্স দুর্বল হয়ে পড়েছে তাহলে আপনি আপনার ল্যাপটপ টি একবার রিস্টার্ট করুন দেখবেন আপনার ল্যাপটপ এর পারফরমেন্স ঠিক হয়ে যাবে। তবে একটা বিষয় আপনাকে একটু জানিয়ে রাখি ল্যাপটপ বেশি সময় ব্যাবহার করার থেকেও আরও বেশি প্রবলেম হয় আপনি যদি ঘন ঘন আপনার ল্যাপটপ টি অন,অফ করেন। তবে আপনার ল্যাপটপে যদি এস,এস,ডি থাকে তাহলে প্রবলেম হয় না। এখানে আমার পরামর্শ থাকবে আপনি যদি ল্যাপটপ ঘন,ঘন অন,অফ করে থাকেন, তাহলে তা না করে একটা ব্যাবহার করুন কোন প্রবলেম হবে না, এবং সেই সাথে আপনি আপনার ল্যাপটপ টি কখনো স্লিপ,বা হাইবারনেট মুড করে অনেক সময় রেখে দিবেন না, তবে আমার এই পরামর্শ গুলা যাদের ল্যাপটপ এর কনফিগারেশন একটু লো তাদের জন্য। তবে আপনার ল্যাপটপ এর কনফিগারেশন যদি অনেক হাঁই লেভেল এর হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে এই সব বিষয়ের উপর তোয়াক্কা না করলেও চলবে। কেননা হাঁই কনফিগারেশন এর ল্যাপটপ গুলতে সব কিছু সেই ভাবেই দেওয়া থাকে, যার ফলে অনেক রাফ ব্যাবহার করলেও মানিয়ে গুছিয়ে নিতে পারে। 
ল্যাপটপে কুলার ব্যাবহার না করা না করলে কি হতে পারে এবং ল্যাপটপে কুলার ব্যাবহার করা কি উচিৎ ?
আপনি যখন একটা ল্যাপটপ কিনেন তখন সর্বনিম্ন ২৫,থেকে ৩০ হাজার টাকা খরচ করে একটা ল্যাপটপ কিনেন। তাহলে তার সাথে ১৫০০ টাকা দিয়ে একটা কুলার কিনে নিতে বা আপনার প্রবলেম কোথায়। দেখুন ল্যাপটপে কুলার ব্যাবহার করা উচিৎ তার কারন ল্যাপটপ তো আর ডেক্সটপ এর মতো না, ডেক্সটপ এ অনেক জায়গা থাকে গরম হাওয়াটা বের করে দেওয়ার জন্য, কিন্তু ল্যাপটপে তেমন তা না, ল্যাপটপে ছোট্ট একটা যায়গায় সব কিছু থাকে যার ফলে গরম হাওয়াটা বের করে দেওয়ার যায়গাটাও অনেক কম। আর ল্যাপটপ যদি অনেক বেশি গরম হয় তাহলে আপনার ল্যাপটপ ব্যাবহার করতেও একটু প্রবলেম হয়ে পরে। এখন আপনি বলতে পারেন আচ্ছা তাহলে ল্যাপটপ এর ভিতরে তো কুলিং থাকে, তাহলে কেন আমাকে এক্সট্রা একটা কুলিং ব্যাবহার করতে হবে? এই প্রশ্নের উত্তর একটাই ল্যাপটপ এর ভিতরে কুলিং আছে তবে যে কুলিং টা ল্যাপটপ এর ভিতরে দেওয়া থাকে ওই কুলিং টি অনেক ছোট হয়ে থাকে এবং যায়গায় অনেক কম থাকে ল্যাপটপ এর ভিতরে, ফলে গরম বাতাস বের করে দেওয়ার স্পেস তেমন টা থাকে না। আর এ জন্যই আপনার একটা এক্সট্রা কুলিং ব্যাবহার করা উচিৎ। এখানে আমার পরামর্শ অবশ্যই আপনার একটা এক্সট্রা কুলিং ব্যাবহার করা উচিৎ, কেননা আপনি যদি একটা এক্সট্রা কুলিং ব্যাবহার করেন তাহলে দীর্ঘসময় পর্যন্ত কাজ করলেও আপনার ল্যাপটপ টি তেমন গরম হবে না ফলে আপনার কাঙ্খিত কাজ করতেও প্রবলেম হবে না। দেখুন এখন সব শেষে একটা কথাই বলতে চাই, আমি কোন কম্পিউটার এক্সপ্রাট না, আমি আমার নিজের নলেজ গুলা শেয়ার করছি, আর বলতে গেলে বলতে হয় আমার নিজের এক্সপিরিয়ান্স টা অনেক। তারপরেও মানুষ মাত্র ভুল হয়, যদি আপনার কোন কিছু আপনার ভুল মনে হয় বা আপনার এই বিষয়ে কিছু জানার থাকে তাহলে আপনি আমাকে প্রশ্ন করতে পারেন। ধন্যবাদ

Click to comment