On
কিভাবে এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট লিখবেন আপনার ব্লগে


কিভাবে এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট লিখবেন আপনার ব্লগে

যারা নতুন ব্লগিং করা শুরু করছি, কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না কিভাবে আমরা আমদের ব্লগে এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট লেখবো। হে হ্যালো বন্ধুরা আমি আকাশ আছি তোমাদের সাথে। আজ আমি তোমাদের কে বলবো কিভাবে তুমি তোমার ব্লগার এ এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট লিখবে। তো আর বেশি কথা না বলে চলো তাহলে শুরু করি।

প্রথমে তোমাকে পোস্ট এর টাইটেল নির্বাচন করতে হবে

এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট করার জন্য সর্বপ্রথম তোমাকে ভালো একটি টাইটেল নির্বাচন করতে হবে, এবং সেই টাইটেল অনুযায়ী তোমাকে পোস্ট করতে হবে। এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট করার জন্য তোমার টাইটেল টাই কিন্তু মেইন এটা মনে রাখবে, এবং তুমি যে টাইটেল টি নির্বাচন করবে সেই টাইটেল টি যেন অনেক বড় অথবা অনেক ছোট না হয়। আর পারলে চেষ্টা করবে টাইটেল টাকে কিছুটা ইউনিক করার।

হেডিং এর ব্যবহার করতে হবে



আমরা অনেকেই আছি আমরা হেডিং এর কোন রকম কোন ব্যবহার ই করি না, শুধু লেখার দরকার মনে করে লিখে যাই। কিন্তু আমরা এখানেও অনেক বড় একটা ভুল করে থাকি। আমরা যদি এই হেডিং গুলা ব্যাবহারই না করি তাহলে এই হেডিং ১, হেডিং ২ এগুলা এসব কেন দেওয়া হয়েছে। আমাদের কে এই হেডিং এর ব্যবহার টা অবশ্যই করতে হবে।

কিভাবে আপনি আপনার পোস্টে ছবি ব্যবহার করবেন

এই ভুল টা আমিও নিজেও অনেক করেছি, আর আমার মনে হয় কম বেশি আমরা সবাই এই ভুল টা করে থাকি। আমরা একটা পোস্ট করার জন্য না জানি কতো গুলা ছবির ব্যবহার করে থাকি। আর এই জন্যই আমাদের পোস্ট গুগল এ ইনডেক্স হয় না। গুগল এর পলিসি অনুযায়ী একটি পোস্টে একটি ছবিই যথেষ্ট, কেননা ব্লগার হলে লেখার প্লাটফর্ম এখানে আমাদের মেইন কাজ হোল লেখা। তো আমরা যদি লেখা টা কম করে ছবি টা অনেক বিশি দিয়ে কিছুটা স্লাইড শো এর মতো করে ফেলি তাহলে কি হবে ? না হবে না।  তুমি পোস্ট করার সময় সেই পোস্ট টিতে একটি অথবা দুটি ছবি ব্যবহার করতে পারো, তবে একটি করাই ভালো আমার মতে।

আর্টিকেল কিভাবে লিখবে

এটা সম্পূর্ণ ভাবে তোমার বেপার তুমি পোস্ট যেকোনো ভাবেই লিখতে পারে। কিন্তু তুমি যে পোস্ট টি করতে সেটি যেন  কোন ভাবেই কপি না হয়। আর সব সময় এটা চেষ্টা করবে পোস্ট টাকে নিজের স্টাইল এ লেখার, কে কিভাবে লিখছে বা কি করছে এসব এর দিকে দেখতে গেলো তোমার নিজের কিছু হবে না। টা ছাড়া অন্য কারো লেখার স্টাইল কপি করতে গিয়ে নিজে সব কিছুই ভুল ভাল করে ফেলবে। টাই সর্বদা চেষ্টা করবে নিজে নিজের মতো করে লেখার জন্য।

কতো ওয়ার্ড এর ভিতর পোস্ট লিখবে

তুমি যে টপিক নিয়ে পোস্ট টি করছো এটা নির্ভর করে তার উপর। কিন্তু আমরা অনেকেই মনে করি যে আমি যাই পোস্ট করি না কেন আমার সেই পোস্ট টিকে অনেক বড় করে লিখতে হবে, মানে অনেক বেশি ওয়ার্ড এর লিখতে হবে। না এটা করলে ভুল হবে কারন যে টপিক টা যেরকম তোমাকে ঠিক সেভাবেই লিখতে হবে। যদি তুমি টা না করে কি পোস্ট করছো বা না করছো তার খেয়াল নাই তোমার মাথায় শুধু এটা যে তোমার পোস্ট টা ১৫০০ বা ২০০০ ওয়ার্ড এর করতে হবে। না এরকম করলে তুমি আসলে কি লিখছো বা কি বুঝাতে চাচ্ছো এটা বুজতে কষ্ট হয়ে যাবে তোমার ভিজিটর দের। আর যদি তোমার ভিজিটর দের ই বুজতে কষ্ট বা প্রবলেম হয় তুমি কি বুঝাতে বা বলতে চাচ্ছো তাহলে তোমার বেশি ওয়ার্ড এর পোস্ট লিখে কি লাভ হোল। এ জন্যই টপিক এর উপর নির্ভর করে যে তুমি যে পোস্ট টি লিখবে সেই পোস্ট টি কতো ওয়ার্ড এর হবে। 

এই কয়েকটি সিম্পল বিষয় মেনে চললে তুমি আসতে আসতে শিখে যাবে কিভাবে এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট লিখতে হয়। দেখো কাউকে কখনোই হাতে কলমে এসইও করানো বা এসইও সেখান সম্ভব নয়। তুমি আসতে আসতে কাজ করতে করতে শিখে যাবে। এটাই সত্য আর এটাই বাস্তবটা, এটা খুব কঠিন কিছু না আবার খুব ইজি ও না। ধন্যবাদ সবাই কে।

Click to comment